ডুবে যাওয়া নৌকা থেকে মেয়েকে বাঁচাতে গিয়ে প্রাণ দিলেন- মা!

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় নৌকাডুবির ঘটনায় মেয়েকে বাঁচাতে গিয়ে লাশ হলেন মা। শুক্রবার সন্ধ্যা ছয়টার দিকে জেলার বিজয়নগরে বালুবোঝাই ট্রলারের সঙ্গে ধাক্কায় নৌকা ডুবির ঘটনায় অঞ্জনা বিশ্বাস ও তার আড়াই বছরের মেয়ে ত্রিদিবা বিশ্বাসের মৃত্যু হয়।
এ ঘটনায় মারা যাওয়া অঞ্জনা বিশ্বাসের ১৭ বছরের ছেলে সৌরভ বিশ্বাস ৬ বছরের মেয়ে মন্দিরা বিশ্বাসকে জীবিত উদ্ধার করা হয়।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, শুক্রবার বিজয়নগর উপজেলার চম্পকনগর ইউনিয়নের আদমপুর গ্রামের পরিমল বিশ্বাসের স্ত্রী অঞ্জনা বিশ্বাস তার দুই মেয়ে ও এক ছেলেকে নিয়ে তার প্রবাসী ভাই হরিপদ বিশ্বাসকে দেখতে বাবার বাড়ি জেলা শহরের গোকর্ণ ঘাটে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে লইসকার বিলে বালুবোঝাই ট্রলারের সঙ্গে ধাক্কায় নৌকা ডুবে যায়। এ সময় অঞ্জলি দুই মেয়ে ও এক ছেলেকে নিয়ে নৌকার ভেতরে অবস্থান করছিলেন। নৌকাডুবির সঙ্গে সঙ্গে অঞ্জলি তার মেয়ে মন্দিরাকে নৌকার ফাঁক দিয়ে বালুবোঝাই ট্রলারে থাকা লোকদের হাতে তোলে দেন। মন্দিরাকে বের করে দিতে পারলেও অঞ্জলি ও তার আড়াই বছরের মেয়ে ত্রিদিবা বিশ্বাস আর নৌকা থেকে বের হতে পারেনি। ছেলে সৌরভ কোন ফাঁকে নৌকা থেকে বের হয়ে সাঁতরে তীরে চলে আসে।

অঞ্জলির মেয়ে মন্দিরা বিশ্বাস ভয়ে ও কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, নৌকা যখন ডুবে যায়, মা তখন আমারে নৌকার ভেতর থেকে ঠ্যালা (ধাক্কা) নিয়ে একটা লোকের কোলে দিয়ে দেয়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*